1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত
  8. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  9. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
চন্দ্রমহল ইকোপার্ক এখন বিনোদন কেন্দ্রনাকি অসামাজিক কেন্দ্রস্থল
বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন

চন্দ্রমহল ইকোপার্ক এখন বিনোদন কেন্দ্রনাকি অসামাজিক কেন্দ্রস্থল

মোঃজিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা ব্যুরো প্রধান
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২১
  • ১৫০ জন পড়েছেন

খুলনা-মোংলা মহাসড়কের বাগেরহাটের রনজিৎপুর গ্রামের বহুলআলোচিত বিনোদন কেন্দ্র চন্দ্রমহল ইকোপার্কে বিনোদনের নামে চলছে উঠতি বয়সি কপোত-কপোতিদের অসামাজিক ও অনৈতিক কর্মকান্ড। আর এই অসামাজিক ও অনৈতিক কর্মকান্ড চলার কারণে এলাকার সামাজিক পরিবেশ চরমভাবে নষ্ট হচ্ছে। অবক্ষয় হচ্ছে মনুষত্বের, ধংশ হচ্ছে কিশোর ও তরুন সমাজের।

অতিদ্রুত এই অসামাজিক ও অনৈতিক কর্মকান্ড বন্ধ করা না হলে বিপর্যয় হবে সমাজের।চন্দ্রমহল ইকোপার্কে এলাকা ঘুরে স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, র‌্যাব-৬ ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ অধিদপ্তর খুলনার বিভাগীয় কর্মকর্তারা বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে চন্দ্রমহল ইকোপার্কে ১৫ নভেম্বর সকালে অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে বিপুল পরিমাণে বিভিন্ন প্রজাতির বন্যপ্রাণী ও তার চামড়া উদ্ধার করে। এসময় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে পার্ক কর্তৃপক্ষকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে ১ বছরের কারাদন্ড প্রদান করেন। কিন্তু জরিমানার নগদ ৫০ হাজার টাকা তাৎক্ষণিক পরিশোধ করায় পার্কের ম্যানেজারকে সতর্ক করে ছেড়ে দেয় এবং উদ্ধারকৃত বন্যপ্রাণী ও প্রাণীর চামড়া বনবিভাগের নিকট হস্তান্তর করেন। তারপরেও থেমে থাকেনি পার্কে অসামাজিক ও অনৈতিক কর্মকান্ড। পার্ক কর্তৃপক্ষ ভিন্ন কৌশলে উঠতি বয়সি যুবক-যুবতি (কপোত-কপোতি) প্রবেশ করাচ্ছে। আর এই যুবক-যুবতীরা পার্কের ভিতরে নানা প্রকার অনৈতিক কার্যকালাপে লিপ্ত হচ্ছে।

পার্কের ভিতরের পূর্বপার্শ্বে টিনের বেড়া ও বেশ কয়েকটি বেঞ্চ তৈরী করা রয়েছে। সেখানে কপোত-কপোতিরা নিরপদে ঘন্টার পর ঘন্টা বসে গল্পের ছলে নানানঅসামাজিক কাজ করতে দেখা যায়। এলাকাবাসীসহ বিনোদন পিপাসু মানুষ এসকল সামাজিক কর্মকান্ড বন্ধের জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড