1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত
  8. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  9. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
জনগণের টাকা ফেরত না দেওয়ার উদ্দেশ্যে অবরুদ্ধের টালবাহানায় নিজ কার্যালয়ে স্বেচ্ছায় অবস্থান
মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১১:৫৩ পূর্বাহ্ন

জনগণের টাকা ফেরত না দেওয়ার উদ্দেশ্যে অবরুদ্ধের টালবাহানায় নিজ কার্যালয়ে স্বেচ্ছায় অবস্থান

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২১
  • ৩০৭ জন পড়েছেন

জনগণকে বেশি মুনাফা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বেশ কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে ফেরত না দেওয়ার উদ্দেশ্যে অবরুদ্ধের টালবাহানায় নিজ কার্যালয়ে স্বেচ্ছায় অবস্থান করছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের যমুনা মানব কল্যান সংস্থা নামক একটি প্রতিষ্ঠানের সভাপতি মোঃ সেলিম আলী ও নির্বাহী পরিচালক মোঃ কবির আলী।

গতকাল ১৮ অক্টোবর, চাঁপাইনবাবগঞ্জের স্থানীয় কিছু পত্রিকায়, “এনজিও’র দুই কর্মকর্তা ৯দিন থেকে অবরুদ্ধ, শিবগঞ্জে ৪ কোটি টাকা নিয়ে লাপাত্তা যমুনার পরিচালক” শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ হয়। সংবাদটি চোখে পড়ে দৈনিক নোঙর অনুসন্ধানী দলের। যদি সেরকম কিছু ঘঠেই থাকে তবে তাদের আইনের হাতে সোর্পদ করা উচিত। কিন্তু, ৯ দিন ধরে অবরুদ্ধ কেন? ঘঠনাস্থলে তাৎক্ষণিক পৌঁছে যান দৈনিক নোঙর অনুসন্ধানী দল। তবে গিয়ে দেখে সব উল্টো। খোঁজ পায় থলের বিড়ালের৷

স্থানীয় সংবাদপত্রে স্বেচ্ছায় অবরুদ্ধ থাকা দুই ব্যক্তি মোঃ কবির আলী-কে এরিয়া ম্যানেজার ও মোঃ সেলিম আলী-কে হিসাবরক্ষক হিসেবে উল্লেখ করা হয়। তবে সমাজ সেবা অধিদপ্তরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মোঃ সেলিম আলী যমুনা মানব কল্যান সংস্থার সভাপতি ও মোঃ কবির আলী সেই প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক।

গ্রাহকদের প্রায় ৪ কোটি টাকা আত্মসাৎ-এর উদ্দেশ্যে নিজেদের সংস্থাটির কর্মচারী ও চিকিৎসায় বাইরে থাকা সংস্থাটির সাবেক কর্মকর্তাকে মালিক ঘোষণা করে তারা স্বেচ্ছায় অফিসে অবস্থান নেন। যার ফলে গ্রাহকরা বিভ্রান্তিতে পড়ে কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন। এবং এই ঘঠনাটি ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় সংবাদপত্রে তাদের কর্মকর্তা পরিচয়ে সংবাদ প্রকাশ হয়।

প্রসঙ্গত, চাঁপাইনবাবগঞ্জের যমুনা মানব কল্যান সংস্থাটির পালিয়ে যাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় উঠে। সাথে গ্রাহকরা সংস্থাটির মালিক নিয়ে বিভ্রান্তিতে পড়ে।

উল্লেখ্য যে, যমুনা মানব কল্যান সংস্থাটি চাঁপাইনবাবগঞ্জে গ্রাহকদের থেকে এফডিআর, ডিপিএস ও সঞ্চয় গ্রহন করতেন এবং ক্ষুদ্রঋণ দিয়ে থাকতেন৷

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড