হৃদরোগে নয়, ছাগলে কলাগাছ খাওয়ায় ভাইকে হত্যা করেন ইব্রাহিম
  1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  8. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  9. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : Sobuj Ali : Sobuj Ali
হৃদরোগে নয়, ছাগলে কলাগাছ খাওয়ায় ভাইকে হত্যা করেন ইব্রাহিম
মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০২:২৫ অপরাহ্ন

হৃদরোগে নয়, ছাগলে কলাগাছ খাওয়ায় ভাইকে হত্যা করেন ইব্রাহিম

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৩১ মে, ২০২১
  • ৬৭ জন পড়েছেন

রংপুরের মিঠাপুকুরের খোড়াগাছে চাঞ্চল্যকর সালাম মিয়া (৪৮) হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। হৃদরোগে সালামের মৃত্যু হয়েছে বলে প্রচার করা হলেও আপন ভাই ইব্রাহিম মিয়া তাকে হত্যা করেছে।

বৃহস্পতিবার পুলিশ তাকে গ্রেফতার করলে ভাই সালামকে হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার বিষয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন তিনি।

রোববার বিষয়টি নিশ্চিত করেন পিবিআই রংপুর জেলার পুলিশ সুপার এবিএম জাকির হোসেন। তিনি জানান, ২০১৭ সালের ২৪ জুন সন্ধ্যায় রংপুরের মিঠাপুকুরের খোড়াগাছ উত্তরপাড়ার কুঠিপাড়া গ্রামের বাড়ির পাশে সড়কে ওই গ্রামের মৃত নুর ইসলামের ছেলে সালামের (৪৮) লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মমিনুল ইসলাম মিঠাপুকুর থানায় হত্যা মামলা করে। সালামের ভাইসহ অন্য আসামিরা তার মৃত্যু হৃদরোগে হয়েছে বলে সংবাদ প্রচার করে।

পর্যায়ক্রমে মিঠাপুকুর থানা পুলিশ ও রংপুর সিআইডি তদন্ত করে আদালতে চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করে। বাদীর নারাজির প্রেক্ষিতে আদালত পিবিআই রংপুরকে অধিকতর তদন্তের নির্দেশ দেন। পিবিআই মামলাটি তদন্ত করে ঘটনার সঙ্গে নিহতের আপন ভাই ইব্রাহিম মিয়া (৫৫) প্রত্যক্ষভাবে জড়িত থাকায় তাকে গত বৃহস্পতিবার খোড়াগাছ উত্তরপাড়ার কুঠিপাড়া গ্রাম হতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গ্রেফতার করে।

পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার আরও জানান, প্রায় ৪ বছর আগে ছাগলের কলা গাছের চারা খাওয়াকে কেন্দ্র করে সালাম ও তার স্ত্রীর সঙ্গে ইব্রাহিমের স্ত্রী ও ছেলের বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় ইব্রাহিম ও সালাম বাড়িতে ছিলেন না। বাড়িতে এসে সালাম ঘটনা শোনার পর জনৈক মোস্তফার বাড়িতে ঘটনার বিচার দেওয়ার জন্য যায়।

সেখানে ইব্রাহিমও ছিল। সেখানে তাদের মধ্যে পুনরায় বাকবিতণ্ডা শুরু হলে প্রতিবেশী গোলাম মোস্তফা তখন তাদের দুই ভাইকে থামিয়ে দিয়ে তারাবির নামাজের পরে আসতে বলেন। সেখান থেকে বাড়ি ফেরার পথে দুই ভাইয়ের মধ্যে বিবাদ শুরু হয়। সালামকে মারধোর করে সজোরে আঘাত করে মাটিতে ফেলে দিলে তিনি সেখানে মারা যান।

এ বিষয়ে পিবিআই রংপুর জেলার পুলিশ সুপার এবিএম জাকির হোসেন বলেন,  আদালতের কিছু গুরুত্বপূর্ণ পর্যবেক্ষণসহ মামলাটি পিবিআই রংপুরে তদন্তের জন্য দেওয়া হয়। নিহতের সুরতহাল থেকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ক্লু পাওয়া যায়। মামলাটি নিবিড় তদন্তকালে প্রকাশ্য ও গোপন বেশকিছু সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে আসামি ইব্রাহিমকে গ্রেফতার করা হয়। পরে গত শুক্রবার তাকে রংপুরের আদালতে সোপর্দ করা হলে ইব্রাহিম মিয়া তার ভাই সালামকে হত্যার ঘটনায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এতে চার বছর ধরে সালামের অজ্ঞাত মৃত্যু রহস্য উন্মোচিত হলো।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড