1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত
  8. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  9. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
কৃষকের ধান বিক্রি করতে দিচ্ছে না পুলিশ
শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২:১০ অপরাহ্ন

কৃষকের ধান বিক্রি করতে দিচ্ছে না পুলিশ

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৩১ মে, ২০২১
  • ১০৩ জন পড়েছেন

নিজের ধান বিক্রি করে বিপাকে পড়েছেন নেত্রকোনার মদন উপজেলার গোবিন্দশ্রী গ্রামের কৃষক ছিদ্দিক মিয়ার স্ত্রী পারভিন আক্তার। পুলিশ ধান নিতে বাধা দেয়ায় রোববার নিজ ঘরের সামনে ধান নিয়ে বসেছিলেন তিনি।

ভুক্তভোগী পারভিন আক্তার বলেন, নিজের ধান বিক্রি করে আমি বিপদে পড়েছি। ধান ক্রয়কারী লোকজন বাড়িতে এসে বসে আছেন। তারা ধান নিতে চাইলে থানার পুলিশ বাধা দিয়েছে।

তিনি বলেন, আমার স্বামীকে হয়রানি করার জন্য মিথ্যা মামালার আসামি করা হয়েছে। মামলার পর থেকে আমার পরিবারের পুরুষ লোকজন বাড়িছাড়া। আমরা ৪ জন মহিলা বাড়িতে বসবাস করছি। বাদীপক্ষের লোকজন ঘরের জিনিসপত্র ভাংচুর করেছে। প্রতিপক্ষের লোকজন আমার ২০০ মণ ধান লুটপাট করে নিয়ে যাওয়ার পাঁয়তারা করে আমাদের হুমকি দিচ্ছে।

পারভিন আক্তার বলেন, টাকার প্রয়োজন হওয়ায় রোববার ধান বিক্রি করেছিলাম। কিন্তু মদন থানার দারোগা মাসুদ সাহেবসহ কয়েকজন পুলিশ নিয়ে এসে ধান নিতে দিচ্ছেন না। বিকালে বাজার করে খাওয়ার মতো টাকা আমার হাতে নাই। আমরা এখন কী করব?

গোবিন্দশ্রী ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা একেএম নূরুল ইসলাম ছদ্দু মিয়া বলেন, ছিদ্দিক মিয়ার স্ত্রী নিজেদের ধান নিজেরাই বিক্রি করবেন। এতে পুলিশের বাধা দেয়ার তো কিছু নেই। এ বিষয়ে আমি ওসি সাহেবের সঙ্গে কথা বলব।

মদন থানার এসআই মাসুদ জামালী বলেন, হত্যা মামালার বাদী ও বিবাদীর বাড়িতে আমি ডিউটিতে আছি। ধান বিক্রিতে বাধা দেয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, এখন ধান নিলে সমস্যা আছে।

মদন থানার ওসি ফেরদৌস আলম বলেন, বাদীপক্ষ জানায়- আসামিপক্ষের বাড়ি থেকে কে বা কারা ধান নিয়ে যাচ্ছে। তাই ধান নিতে নিষেধ করা হয়েছে।

গত ১৮ মে নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলায় মেন্দিপুর ইউনিয়নের বাবনিকোনা গ্রামের বিল থেকে মদন উপজেলার গোবিন্দশ্রী গ্রামের মৃত ধন মিয়ার ছেলে আবু চাঁনের (৭০) গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে আবুল মিয়া বাদী হয়ে খালিয়াজুরী থানায় ১০ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। হত্যা মামলায় ছিদ্দিক মিয়াকে (৬০) আসামি করা হয়।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড