1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত
  8. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  9. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
কারখানায় আগুন লাগার ৫০ ঘণ্টা পর চার শ্রমিকের দগ্ধ লাশ উদ্ধার
বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০১:১১ অপরাহ্ন

কারখানায় আগুন লাগার ৫০ ঘণ্টা পর চার শ্রমিকের দগ্ধ লাশ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৯ মে, ২০২১
  • ৯৮ জন পড়েছেন

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নিউ ব্যারাকপুরের একটি গেঞ্জি কারখানায় আগুন লাগার ৫০ ঘণ্টা পর দগ্ধ চার শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।


বৃহস্পতিবার লাগা ওই কারখানাটির আগুন শনিবার সকালে নিয়ন্ত্রণে আসে। এর পর কারখানাটির ভিতর থেকে ওই শ্রমিকদের পোড়া মরদেহ বের করে আনেন উদ্ধারকর্মীরা। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

পুলিশ জানায়, মরদেহগুলি উদ্ধারের পর তাদের পরিবারের লোকেদের ডাকা হয়েছে শনাক্তকরণের জন্য। আগুন লাগার ৫০ ঘণ্টা পর ওই চার শ্রমিকের দগ্ধ লাশ উদ্ধার করা সম্ভব হল।

নিহত চার শ্রমিকের নাম সুব্রত ঘোষ, তন্ময় ঘোষ, অঙ্কিত সেন এবং স্বরূপ ঘোষ। বৃহস্পতিবার ভোরে আগুন লাগার পর থেকেই ভিতরে আটকা পড়েছিলেন তারা।

বৃহস্পতিবার ভোর রাতেই নিউ ব্যারাকপুরের তালবান্দার ওই গেঞ্জির কারখানায় আগুন লাগে। একটি তিনতলা বাড়ির ভিতরে রয়েছে ওই কারখানাটি। ওই বাড়িতেই একটি ওষুধের গুদাম এবং রঙের কারখানাও রয়েছে।

দমকলবাহিনী জানায়, কারখানার ভিতর গ্যাস সিলিন্ডার মজুত করা ছিল। এ ছাড়া ওষুধের গুদামে রাখা ছিল প্রচুর পরিমাণে স্যানিটাইজার। রঙের কারখানায় ডিজেলও রাখা ছিল। তা থেকেই দ্রুত আগুন ছড়িয়েছে বলে জানান দমকলবাহিনীর কর্মকর্তারা।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড