কেন্দুয়ায় দুইপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৬০
  1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  8. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  9. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : Sobuj Ali : Sobuj Ali
কেন্দুয়ায় দুইপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৬০
সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১০:৩৮ অপরাহ্ন

কেন্দুয়ায় দুইপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৬০

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৬ মে, ২০২১
  • ৮০ জন পড়েছেন

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় সমিতিতে আধিপত্য বিস্তার ও সমিতির টাকা নিয়ে বিরোধে জের ধরে উভয়পক্ষের মাঝে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে অন্তত ৬০ জন আহত হয়েছেন।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ফাঁকাগুলি বর্ষণ ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করেছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার উপজেলার চিরাং ইউনিয়নে বাট্টা চংনোয়াগাঁও গ্রামে দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে সংঘর্ষ শুরু হয়ে দফায় দফায় তা ৩টা পর্যন্ত চলে।

পুলিশ জানিয়েছে, সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ ৭৩ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকাগুলি এবং ৬ রাউন্ড টিআরসেল নিক্ষেপ করে।

আহতদের মধ্যে সুলেমান (৩০), বকুল মিয়া (২৫), শহিদুল্লাহ (৪২), আবুল কাশেস (৫২), মিরন (৩০), উসমান (৫০), আবুল (৫৫), তাহের উদ্দিন (৪০) এবং কাইয়ুম (৫০) কে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। অন্যদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

কেন্দুয়া থানার ওসি কাজী শাহনেওয়াজ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার চিরাং ইউনিয়নের বাট্টা চংনোয়াগাঁও গ্রামে খাস খতিয়ানের জায়গা চংনোয়াগাও গ্রাম উন্নয়ন সমিতির মাধ্যমে লীজ এনে তাতে চাষাবাদ করা হয়। এভাবে সমিতি লাভবান হয়ে  আসছিল বেশ কয়েক বছর ধরে। কিছুদিন ধরে গ্রামের নামে থাকা সমিতিটিতে আধিপত্ত্য বিস্তার এবং সমিতির টাকা নিয়ে চংনোয়াগাঁও গ্রামে সুরুজ খানের ছেলে মজনু মিয়া এবং একই গ্রামের মৃত আবুল বাশারের ছেলে মামুনুর রশিদের মাঝে বিরোধ চলে আসছিল।

এরেই জেরে মঙ্গলবার  উভয় পক্ষের দুইশ’র মত মানুষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়ান।

কেন্দুয়া থানা পুলিশ,পাশ্ববর্তী মদন থানা পুলিশ এবং নেত্রকোনা পুলিশ লাইনের একদল অতিরিক্ত পুলিশ এসে যৌথভাবে কাজ করে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণ আনতে সক্ষম হয়।  

খবর পেয়ে নেত্রকোণার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত সিনিয়র পুলিশ সুপার কেন্দুয়া সার্কেল জুনায়েদ আফ্রাদ, কেন্দুয়া থানার ওসি কাজী শাহনেওয়াজ, কেন্দুয়ার ইউএনও মঈনউদ্দিন খন্দকার, এসিল্যান্ড খবিরুল আহসান প্রমুখ সংঘর্ষ স্থল পরিদর্শন করেছেন।

ওসি কাজী শাহনেওয়াজ শর্টগানের গুলি ও টিয়ারসেল নিক্ষেপের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এবং এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে ।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড