1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত
  8. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  9. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
ডায়ানার বিখ্যাত সাক্ষাৎকারটি নিতে ‘প্রতারণার’ আশ্রয় নেয় বিবিসি!
শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১১:৩৭ পূর্বাহ্ন

ডায়ানার বিখ্যাত সাক্ষাৎকারটি নিতে ‘প্রতারণার’ আশ্রয় নেয় বিবিসি!

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২১ মে, ২০২১
  • ১১২ জন পড়েছেন

১৯৯৫ সালে বিবিসিতে প্রচারিত হয় প্রয়াত প্রিন্সেস অব ওয়েলস ডায়ানার সাড়াজাগানো সাক্ষাৎকারটি। এটি নিতে গণমাধ্যমটির সাংবাদিক মার্টিন বশির ‘প্রতারণামূলক’ কৌশল ব্যবহার করেছিলেন বলে এক তদন্তে বেরিয়ে এসেছে।  

ব্রিটেনভিত্তিক এ গণমাধ্যমটি বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টাও করেছে বলে দাবি করা হয়েছে সেখানে।

গত বছর প্রিন্সেস ডায়ানার ভাই স্পেনসারের এক অভিযোগের ভিত্তিতে করা তদন্তের রিপোর্ট বৃহস্পতিবার প্রকাশ করা হয়েছে।

কীভাবে সেই সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছিল তার একটি রিপোর্ট প্রকাশের পর তদন্তের নেতৃত্বদানকারী অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি লর্ড ডাইসন বিবিসিকে বলেন, ‘বিবিসি বস্তুনিষ্ঠতা ও স্বচ্ছতার ব্যাপারে যে উঁচু মানদণ্ড মেনে চলে, যেটি তার সাংবাদিকতার মূল স্তম্ভ, এ ক্ষেত্রে তার ব্যত্যয় ঘটেছে।’

ওই রিপোর্ট ও বিচারপতি লর্ড ডাইসনের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বিবিসি।

গণমাধ্যমটি বলেছে— ওই রিপোর্টে ‘স্পষ্ট ব্যর্থতার’ চিত্র বেরিয়ে এসেছে এবং আমরা এ জন্য খুবই দুঃখিত।

তদন্ত রিপোর্টে কি বলা হয়েছে বিবিসির বিরুদ্ধে? 

ডায়ানার সাক্ষাৎকার নিতে বিবিসির সাংবাদিক প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছিলেন। তিনি প্রিন্সেসের ভাই স্পেনসারের আস্থা অর্জনের জন্য তাকে জাল ব্যাংক স্টেটমেন্ট দেখান, যাতে তিনি প্রিন্সেস ডায়ানার কাছে সহজে পৌঁছতে পারেন।

অভিযুক্ত সাংবাদিক বশির এখন আর বিবিসির সঙ্গে কাজ করছেন না।

শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে গত সপ্তাহে বিবিসির চাকরি থেকে ইস্তফা দিয়েছেন তিনি।  

৫৮ বছর বয়সি এ সাংবাদিক ২০১৬ সাল থেকে বিবিসির ধর্মবিষয়ক সংবাদদাতা ও সম্পাদক ছিলেন।

একটি বিবৃতিকে নিজের বিরুদ্ধে আনা এমন অভিযোগের বিষয়ে মি. বশির বলেছেন, ব্যাংক স্টেটমেন্ট জাল করার জন্য দুঃখিত। তবে ডায়ানার ওই সাক্ষাৎকার নিয়ে আমি অসম্ভব গর্বিতও বটে। 

তবে ওই সাক্ষাৎকারে ব্যাংকের ওই দলিলপত্রের কোনো প্রভাব ফেলেনি বলে দাবি করেন বসির। বলেন, ‘প্রিন্সেস ডায়ানা ব্যক্তিগতভাবে রাজি হয়েছিলেন সাক্ষাৎকার দিতে। এবং ব্যাংকের ওই দলিলপত্রের সঙ্গে তার সিদ্ধান্তের কোনো যোগাযোগ ছিল না।’

এ বিষয়ে বিবিসির মহাপরিচালক টিম ডেভি বলেন, ‘প্রিন্সেস ডায়ানা বিবিসিকে সাক্ষাৎকার দেওয়ার ব্যাপারে আগ্রহী ছিলেন ঠিকই কিন্তু এটি স্পষ্ট যে, ওই সাক্ষাৎকার নেওয়ার জন্য যে পথ বেছে নিয়েছিলেন মি. বশির, তা শ্রোতাদর্শক আমাদের কাছ থেকে যা প্রত্যাশা করে তা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। আমরা এ জন্য খুবই দুঃখিত। লর্ড ডাইসন এই ব্যর্থতা স্পষ্টভাবেই চিহ্নিত করেছেন।’

উল্লেখ্য, ২৬ বছর আগে প্যানোরমা অনুষ্ঠানের জন্য মার্টিন বশিরের নেওয়া প্রিন্সেস ডায়ানার ওই সাক্ষাৎকার তখন বিশাল একটা আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল। বিবিসির এই সাক্ষাৎকারে প্রিন্সেস ব্রিটিশ রাজপরিবার ও তার জীবন নিয়ে প্রথমবার এমন সব কথা বলেছিলেন, যা ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছিল।

প্রিন্স চার্লসের সঙ্গে অসুখী বিবাহিত জীবন ও তার বুলিমিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার কথা বলেন ডায়ানা।

সূত্র: বিবিসি

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড