রোজিনাকে হেনস্তার প্রতিবাদ জানালেন ইউরোপ প্রবাসী সাংবাদিকরা
  1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত
  8. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  9. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  12. [email protected] : Sobuj Ali : Sobuj Ali
রোজিনাকে হেনস্তার প্রতিবাদ জানালেন ইউরোপ প্রবাসী সাংবাদিকরা
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:১০ পূর্বাহ্ন

রোজিনাকে হেনস্তার প্রতিবাদ জানালেন ইউরোপ প্রবাসী সাংবাদিকরা

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৯ মে, ২০২১
  • ১২৫ জন পড়েছেন

দৈনিক প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে হেনস্তা করার প্রতিবাদ ও তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানিয়েছেন ইউরোপ প্রবাসী সাংবাদিকরা।

প্রবাসী সাংবাদিকরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমলারা একজন নারী সাংবাদিকের গলা চেপে ধরার সাহস পেল কোথায়? দেশের উন্নয়নের সার্বিক চিত্র তুলে ধরতে সাংবাদিকরা যে ভূমিকা পালন করছেন, তা সরকার কোনোভাবেই অস্বীকার করতে পারে না।

দুর্নীতিবাজদের মুখোশ উন্মোচন করা হলে সরকারের জন্য দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের চিহ্নিত করতে সুবিধা হওয়ার কথা। যেখানে প্রধানমন্ত্রী নিজেই দুর্নীতিকে জিরো টলারেন্সের ঘোষণা দিয়েছেন।

যেখানে সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম সরকারের কাছ থেকে বাহবা পাওয়ার কথা, সেখানে তাকে পাঁচ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে আটকে রাখা হয়।

প্রবাসী সাংবাদিকরা বলেন, দেশে গণমাধ্যম কতটা স্বাধীন, তার একটি চিত্র এখানে ফুটে উঠেছে। ইউরোপের বিভিন্ন দেশে বসবাসরত প্রবাসী সাংবাদিকরা রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি চেয়েছেন।

ইতালি থেকে অ্যাডভোকেট আনিসুজ্জামান আনিস বলেন, গনমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করা গণতান্ত্রিক দেশে কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। এটি দেশের ও গণতন্ত্রের জন্য অশুভ সংকেত।

স্বাস্থ্য খাতের দুর্নীতি দেশের স্বার্থে গণমাধ্যমে তুলে ধরাই কাল হয়েছে রোজিনা ইসলামের কাছে।  আমরা এ হামলা ও নির্যাতনের নেতৃত্বে থাকা অতিরিক্ত সচিবকে অবিলম্বে অপসারণ এবং রোজিনার বিরুদ্ধে করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

আখি সীমা কাউসার বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আলোচিত ওই নারী উপসচিবের দৃষ্টান্তমূলক বিচার করা হোক।  তার সব অবৈধ সম্পদ বাজেয়াপ্ত করে তা সরকারি কোষাগারে জমা করারও দাবি জানান তিনি।

পর্তুগাল থেকে ফরিদ আহমেদ পাটওয়ারী বলেন, যেখানে আমরা স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপন করেছি, সেই বছরে একজন সিনিয়র সাংবাদিকের সঙ্গে এই অমানবিক আচরণ আমাদের প্রশাসনিক ব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে।

স্পেন থেকে কবির আল মাহমুদ বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে সংবাদমাধ্যম কর্মীদের নির্যাতিত হওয়ার এমন ঘটনা নতুন নয়। কাগজ-কলমে সংবাদমাধ্যমকে খবর প্রচারে স্বাধীনতা দেওয়া হলেও— এমন ঘটনার মাধ্যমে পরিষ্কার হয় গণমাধ্যম এখনও স্বাধীন নয়। সাংবাদিকতা একটা মহান পেশা, সমাজের ভালো দিকগুলো যেমন এই সংবাদমাধ্যমের হাত ধরে উঠে আসে, ঠিক তেমনি সমাজের দোষ-ত্রুটিগুলো মানুষের সামনে তুলে ধরার দায়িত্ব একজন সংবাদমাধ্যমকর্মীর পেশাগত দায়িত্ব।

পেশাগত দায়িত্বপালনকালে প্রথম আলোর সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম হয়রানির শিকার হওয়ার মতো ঘটনা দেশের ভাবমূর্তি যেমন ক্ষুণ্ন হয়েছে, ঠিক তেমনি প্রশাসনিক ব্যবস্থাকে জাতির কাছে প্রশ্নবিদ্ধ করা হয়েছে। আমি এ ঘটনার প্রতিবাদ এবং সুষ্ঠু তদন্তসাপেক্ষে এর বিচার দাবি করছি।

রোম থেকে লিটন চৌধুরী বলেন, অনিয়মের বিরুদ্ধে কথা বলতে বাধা দেওয়া মানে অনিয়ম করার সুযোগ করে দেওয়া। সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তাকারীদের দ্রুত বিচার দাবি করছি।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড