রাজশাহীর বড়াল নদে ভাসছে শত শত মরা মুরগি
  1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  8. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  9. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : Sobuj Ali : Sobuj Ali
রাজশাহীর বড়াল নদে ভাসছে শত শত মরা মুরগি
মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৫:২২ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীর বড়াল নদে ভাসছে শত শত মরা মুরগি

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৮ মে, ২০২১
  • ৭৬ জন পড়েছেন

রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় আড়ানী পৌর বাজারসংলগ্ন বেইলি ব্রিজের নিচে বড়াল নদে ভাসছে শত শত মরা মুরগি।

মঙ্গলবার সকালে উপজেলার আড়ানী পৌর বাজারসংলগ্ন বেইলি ব্রিজের নিচের বড়াল নদে এমন দৃশ্যই চোখে পড়ে।

সোমবার রাতের আঁধারে ফার্মে মরে যাওয়া এই মুরগি কে বা কারা ফেলে দিয়ে গেছে। ফলে চারদিকে গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে। এই গন্ধে পথচলা ও স্থানীয় দোকানদাররা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন।

এ বিষয়ে আড়ানী বাজারের ফার্মেসি ব্যবসায়ী শরিফুল ইসলাম বলেন, যেখানে মুরগি ফেলা হয়েছে, সেখান থেকে আমার ফার্মেসির দূরত্ব প্রায় ৪০ মিটার। আমি বুঝতে পারিনি। কে কখন ফার্মে মরে যাওয়া ওই মুরগি এভাবে ফেলে দিয়ে গেছে।

তবে আমি রাত ১০টার দিকে দোকান বন্ধ করে চলে যাই। তার পর গভীর রাতে এমন অমানবিক কাজ করা হয়েছে। সুষ্ঠু তদন্ত করে এর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি।

আড়ানী বাজারের স্থানীয় মুরগি ব্যবসায়ী তিতাস আহম্মেদ বলেন, আমাদের ব্যবসায়ীদের কাছে এত মুরগি থাকে না। এভাবে আমাদের মুরগি মারাও যায় না। ব্যবসা করতে গেলে আমাদের কাছে থেকেও দুই-একটি মুরগি মারা যায়। আমরা সেটিকে মাটি খুঁড়ে পুঁতে রাখি। তবে যে ব্যক্তি এমন কাজটি করেছে, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা হওয়া দরকার।

আড়ানী পৌর বাজারের কীটনাশক ব্যবসায়ী সুজন আলী বলেন, বর্তমানে বড়াল নদে যতটুকু পানি আছে, সেখানে তেমন কোনো মাছ নেই। বড় বড় মাছ থাকলে হয়তো এগুলো খেয়ে নিত। বর্তমানে মরা মুরগিগুলো পচে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। এতে পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। গন্ধের কারণে ব্যবসা করতে পারছি না।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আমিরুল ইসলাম বলেন, এতে পানির বিশুদ্ধতা কমে যায়। পরিবেশ নষ্ট হয়। জনস্বাস্থ্য হুমকির মধ্যে পড়ে। তবে বিষয়টি জানা নেই। অবগত হলাম। ঘটনাস্থলে অফিসিয়ালভাবে লোক পাঠিয়ে ব্যবস্থা নেব।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পাপিয়া সুলতানা বলেন, বিষয়টি খোঁজখবর নিয়ে ব্যবস্থা নেব।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড