1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত : আল-আসিফ ইলাহী রিফাত
  8. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  9. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
স্ত্রী হত্যার আসামি হয়ে আদালতে এসপি বাবুল আকতার
বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৩:০৯ অপরাহ্ন

স্ত্রী হত্যার আসামি হয়ে আদালতে এসপি বাবুল আকতার

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ১২ মে, ২০২১
  • ২১৮ জন পড়েছেন

পাঁচ বছর আগে চট্টগ্রামে প্রকাশ্য দিবালোকে মাহমুদা আক্তার মিতুকে হত্যার চাঞ্চল্যকর ঘটনায় দায়ের করা নতুন মামলায় তার স্বামী সাবেক এসপি বাবুল আকতারকে আদালতে নেওয়া হয়েছে।

মিতুর বাবা মোশারফ হোসেন বুধবার দুপুরে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় মামলা দায়েরের পর বাবুলকে আদালতে হাজির করা হয়।

বেলা আড়াইটার দিকে পুলিশের গাড়িতে করে সাবেক এসপি বাবুল আকতারকে চট্টগ্রামের আদালত ভবনে নেওয়া হয়।

আদালতে আনার পর তাকে মহানগর হাকিম সারোয়ার জাহানের আদালতে হাজির করা হয়।

এক সময় চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশে উপকমিশনারের দায়িত্ব পালন করা বাবুল মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রামে পিবিআইয়ের মেট্রো অঞ্চলের কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখী হওয়ার পর থেকেই তদন্তকারীদের হেফাজতে ছিলেন।

বুধবার সকালে পিবিআই জানায়, মিতু হত্যায় বাবুলের সংশ্লিষ্টতা তারা খুঁজে পেয়েছেন। এরপরই বাবুলসহ ৮ জনের নামে মামলা করেন মিতুর বাবা মোশারফ। এ মামলায় বাবুলকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের আবেদন করবে পুলিশ।

২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি মোড়ে ছেলেকে স্কুল বাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় প্রকাশ্যে গুলি চালিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয় মিতুকে।

পদোন্নতি পেয়ে পুলিশ সদরদপ্তরে যোগ দিতে ওই সময় ঢাকায় ছিলেন বাবুল। তার ঠিক আগেই চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশে ছিলেন তিনি।

হত্যাকাণ্ডের পর নগরীর পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাত পরিচয় কয়েকজনকে আসামি করে একটি মামলা করা হয়, যার বাদী ছিলেন বাবুল আক্তার নিজেই।

ওই মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন আজ আদালতে দিয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই পরিদর্শক সন্তোষ চাকমা। ৫৭৫ পৃষ্ঠার ওই চূড়ান্ত প্রতিবেদন এডিসি (প্রসিকিউশন) শাখায় নথিভুক্ত করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২১

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড