ঈদে করোনা বাড়ার আশংকা, স্বাস্থ্যবিধিতে অবহেলা করলেই বিপদ
  1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  8. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  9. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : Sobuj Ali : Sobuj Ali
ঈদে করোনা বাড়ার আশংকা, স্বাস্থ্যবিধিতে অবহেলা করলেই বিপদ
মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ০২:১৭ অপরাহ্ন

ঈদে করোনা বাড়ার আশংকা, স্বাস্থ্যবিধিতে অবহেলা করলেই বিপদ

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৩ মে, ২০২১
  • ৪৩ জন পড়েছেন

মহামারি করোনা দেশে যে দ্বিতীয় আঘাত হেনেছে তা কমেছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।তবে সংস্থাটি বলেছে, করোনা সংক্রমণ কমলেও এতে আত্মতুষ্টির সুযোগ নেই।ঈদকে কেন্দ্র করে যে কোনো মুহূর্তে আবার করোনা সংক্রমণ বেড়ে যেতে পারে বলে আশংকা করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

সোমবার দুপুরে দেশের করোনা পরিস্থিতির সর্বশেষ তথ্য জানিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম ভার্চুয়াল বুলেটিনে এ কথা বলেন।

ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, করোনার যে দ্বিতীয় ঢেউ আমাদের মধ্যে এসেছিল, সেটি কমতে শুরু করেছে। আমরা যদি সর্বশেষ গতকাল (রোববার) পর্যন্ত দেখি, শনাক্তের হার ১০ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। এতে করে আমাদের আত্মতুষ্টি বা করোনা চলে গেছে, এ রকম ভাবার সুযোগ নেই। এখন ঈদকে কেন্দ্র করে যে কোনো মুহূর্তে আবার করোনা সংক্রমণ বেড়ে যেতে পারে।

তিনি বলেন, আমরা দেখছি যে, বিভিন্ন শপিংমলে, দোকানে মানুষের উপচেপড়া ভিড় তৈরি হয়েছে। অনেকেই ঈদের বাজার করতে বের হচ্ছেন। সেখানে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই যে স্বাস্থ্যবিধি মানার কথা ছিল, সেটি করা হচ্ছে না। মনে রাখতে হবে স্বাস্থ্যবিধি পালনে অবহেলা করছেন মানেই কিন্তু আপনারা আশপাশ থেকে সংক্রমিত হয়ে পরিবার ও নিকটজনকে বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারেন।

ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, আমরা দেখছি অনেকেই বাইরে মাস্ক খুলে ইফতার খাচ্ছেন, তারা ভাবছেন এতে করে বিপদের আশংকা নেই। এতেও সংক্রমণের আশংকা রয়েছে। আপনারা বাইরে এসে খাবার গ্রহণ একেবারেই এড়িয়ে চলুন। বাইরে এসে কোনো অবস্থাতেই যেন মাস্ক খোলা না হয়, সঠিক নিয়মে যেন সেটি ব্যবহার করা হয়। শারীরিক দূরত্বও যেন মেনে চলা হয়, সেদিকে খেয়াল রাখার আহ্বান জানান তিনি।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এই মুখপাত্র বলেন, আমরা যে বিধিনিষেধের কথা বলছি, এটা কিন্তু আমাদের সবাইকে মিলেমিশে করতে হবে। কাঁচাবাজার, দোকানপাট, শপিংমল, রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ যারা আছেন প্রত্যেকে যদি বিধিনিষেধগুলো প্রতিপালন করেন এবং স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত নির্দেশনাগুলো নির্দিষ্ট স্থানে ঝুলিয়ে রাখেন এবং নিজেরা সচেতন থাকেন তাহলে কাজটি সহজ হয়ে যায়।

করোনার টিকার প্রথম ডোজ নেওয়ার পর পরিস্থিতির কারণে যাদেরকে অন্য জেলায় যেতে হচ্ছে বা থাকতে হচ্ছে, তাদের জন্য দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া সহজ করা হয়েছে। এখন থেকে এক জেলা থেকে আরেক জেলায় গিয়েও দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া যাবে বলেও জানিয়েছেন ডা. নাজমুল ইসলাম।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

টুইটারে আমরা

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড