অসমাপ্ত রেখেই সমাপ্ত হচ্ছে প্রকল্পের কাজ
  1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  8. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  9. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : Sobuj Ali : Sobuj Ali
অসমাপ্ত রেখেই সমাপ্ত হচ্ছে প্রকল্পের কাজ
বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন

অসমাপ্ত রেখেই সমাপ্ত হচ্ছে প্রকল্পের কাজ

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৩ মে, ২০২১
  • ৫৪ জন পড়েছেন

অসমাপ্ত রেখেই সমাপ্ত হচ্ছে ৪৬টি উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের কাজ। আগামী জুনের মধ্যে প্রকল্পের কাজ শেষ করার সিদ্ধান্ত দিয়েছে স্টিয়ারিং কমিটি। বেশকিছু কাজ বাকি থাকার চ্যালেঞ্জ নিয়েই কাজ শেষ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। প্রথমে ২৫টি উপজেলায় স্টেশন স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও পরে তা সংশোধন করে ৪৬টি করা হয়। তবে জমি অধিগ্রহণ নিয়ে জটিলতার কারণে ৮টির নির্মাণকাজ বাদ থাকছে। ২০১১ সালে প্রকল্পটি হাতে নেওয়া হয়। ‘দেশের গুরুত্বপূর্ণ ২৫টি (সংশোধিত ৪৬টি) উপজেলা সদর/স্থানে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন স্থাপন’ প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় হচ্ছে ৪১৯ কোটি ৩৭ লাখ টাকা।

প্রকল্প প্রস্তাব তৈরির সময় সম্ভাব্যতা যাচাই করা হয়েছিল কি না-এমন প্রশ্নের উত্তরে গণপূর্ত অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোহাম্মদ ফজলুল হক রোববার যুগান্তরকে বলেন, ফায়ার সার্ভিসের প্রকল্পে আগে জমির সংস্থান থাকে না। সব সময় প্রকল্প অনুমোদনের পরই জমির বিষয়টি দেখা হয়। ফলে বাস্তবায়ন পর্যায়ে কিছুটা জটিলতা তৈরি হয়। মূলত জমি জটিলতার কারণেই প্রকল্পটি এত দীর্ঘ সময় লাগছে। তিনি বলেন, যে ৮টি ফায়ার স্টেশন বাদ দেওয়া হবে চলমান প্রকল্পের আওতায় সেসবের জন্য জমি অধিগ্রহণ করে রাখা হবে। পরবর্তী সময়ে নতুন আর একটি প্রকল্পে এসব যুক্ত করে নির্মাণকাজ করা হবে। এতে সার্বিকভাবে প্রকল্পের কোনো সমস্যা হবে না।

সভায় প্রকল্প পরিচালক জানান, ১৬টি ফায়ার স্টেশনের নির্মাণকাজ শেষে উদ্বোধন করা হয়েছে। এ ছাড়া ২২টি স্টেশনের কাজ চলমান। ৭টি স্টেশনের নির্মাণকাজ আশানুরূপ নয়। এর মধ্যে নলডাঙ্গা-নাটোর স্টেশনের নির্মাণকাজ গত ফেব্রুয়ারিতে শুরু হয়েছে। তবে আগামী জুন মাসের মধ্যে ৮টি স্টেশনের মধ্যে ২-৩টির জমি অধিগ্রহণ সম্ভব হলেও বাকি স্টেশনগুলোর জমি অধিগ্রহণ সম্ভব হবে না। ফলে জমি জটিলতায় এই ৮টি স্টেশনের নির্মাণকাজ শুরু করা যাবে না। এ অবস্থায় প্রকল্প থেকে ৮টি স্টেশন নির্মাণকাজ বাদ দিয়ে প্রকল্পটি সমাপ্ত করার জন্য ব্যয় কমিয়ে তৃতীয় সংশোধন করা প্রয়োজন। স্টিয়ারিং কমিটির সভায় গণপূর্ত অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (উন্নয়ন) জানান, নির্মাণাধীন ২২টি স্টেশনের মধ্যে ৭টির নির্মাণকাজের অগ্রগতি তুলনামূলক কম। এর মধ্যে নাটোরের নলডাঙ্গা ফায়ার স্টেশনের অগ্রগতি ২০ শতাংশের কম। আগামী জুনের মধ্যে এর নির্মাণকাজ সম্পন্ন করা কঠিন। এক্ষেত্রে প্রকল্পের মেয়াদ ছয় মাস বাড়িয়ে দিলে ভালো হতো।

সভায় সুরক্ষাসেবা বিভাগের উপসচিব (উন্নয়ন) জানান, প্রকল্পটি আগামী জুনের মধ্যে সমাপ্ত করার সিদ্ধান্ত রয়েছে। ফলে নতুন অর্থবছরে এ প্রকল্পের আওতায় কোনো বরাদ্দ চাওয়া হয়নি। এ ছাড়া এ বছর সমাপ্ত প্রকল্পের মধ্যে এ প্রকল্পের নামের তালিকা পাঠানো হয়েছে। তাই এ পর্যায়ে প্রকল্পটির মেয়াদ ছয় মাস বাড়ানোর কোনো সুযোগ নেই।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সর্বাধিক জনপ্রিয়

টুইটারে আমরা

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড