বিপুল পরিমাণ চোরাই স্বর্ণলঙ্কারসহ ২ পাচারকারী গ্রেফতার
  1. [email protected] : জাহিদ হাসান দিপু : জাহিদ হাসান দিপু
  2. [email protected] : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  3. [email protected] : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  4. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  7. [email protected] : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  8. [email protected] : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  9. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  10. [email protected] : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. [email protected] : Sobuj Ali : Sobuj Ali
বিপুল পরিমাণ চোরাই স্বর্ণলঙ্কারসহ ২ পাচারকারী গ্রেফতার
মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ০২:০০ অপরাহ্ন

বিপুল পরিমাণ চোরাই স্বর্ণলঙ্কারসহ ২ পাচারকারী গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১ মে, ২০২১
  • ৭৯ জন পড়েছেন

বিপুল পরিমাণ চোরাই স্বর্ণলঙ্কারসহ দুই পাচারকারীকে গ্রেফতার করেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ।

স্বর্ণালঙ্কারগুলোর মোট ওজন ১ কেজি ২১০ গ্রাম।যার মধ্যে রয়েছে ১৬৭ জোড়া কানের দুল,চুরি ১৬ টি,আংটি ৯ টি,ব্যাচলেট ১৯ টি এবং চুর ৬ টি।স্বর্ণালংকারগুলোর বর্তমান বাজার মূল্য ৬৬ লাভ ৯৫ হাজার টাকা।

এ বিষয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানার এস আই মাছরুল আলম বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল তায়াবীরের নেতৃত্বে আমরা উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে অভিযান চালিয়ে শুক্রবার বিকেলে এ স্বর্ণলঙ্কারগুলো উদ্ধার করি।এ সময় স্বর্ণ পাচারের সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে দুই পাচারকারীকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো গৌরাঙ্গ দত্ত (৪৫) ও তাপস বনিক (৫৫)। গৌরাঙ্গ দত্তের পিতার নাম ক্ষিতীশ চন্দ্র দত্ত।তিনি ঢাকার পশ্চিম উত্তরা থানার ১৩ নং সেক্টরের ২০ নং রোডের ১১ নং বাসার বাসিন্দা।তাপস বনিকের পিতার নাম পিনেশ চন্দ্র বনিক ওরফে রমেশ বনিক। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের কাজী পাড়ার (বনিক পাড়া)বাসিন্দা।

এ প্রসঙ্গে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, স্বর্ণালঙ্কারগুলোর বিষয়ে গ্রেফথার আসামিরা কোন বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। এগুলো ভারত থেকে অবৈধভাবে পাচার করে আনা হয়েছে বলে তারা স্বীকার করেছেন। গোয়ালন্দ মোড় হতে রিকশাযোগে আসামি তাপস শুক্রবার বেলা সোয়া ২ টার দিকে স্বর্ণালংকারগুলো নিয়ে দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের দিকে আসছিল।আমরা গোপন সংবাদ পেয়ে তাকে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় আটক করি।পরে তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী অপর আসামি ও তার সহযোগী গৌরাঙ্গকে বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে ফেরিঘাট এলাকা থেকে আটক করি।
 
এ বিষয়ে শুক্রবার রাতেই থানায় মামলা দায়েরের পর শনিবার আসামিদের আদালতের মাধ্যমে রাজবাড়ীর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

টুইটারে আমরা

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড