1. khulna@nongor.news : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  2. news-desk@nongor.news : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  3. nisan@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  4. mdashik.ullah393@gmail.com : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  5. rabbi@nongor.news : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. sultanashaila75@gmail.com : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  7. sakia@nongor.news : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  8. ronia3874@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  9. sarowar@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
মামুনুল হক উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে বেড়াচ্ছেন : রাশেদ খান মেনন
বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৪৭ অপরাহ্ন

মামুনুল হক উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে বেড়াচ্ছেন : রাশেদ খান মেনন

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২০ মার্চ, ২০২১
  • ১০০ জন পড়েছেন

পরিকল্পিতভাবে দেশ-বিদেশে বাংলাদেশের অসাম্প্রদায়িক ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নে করার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। বিশেষ করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। নানা ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত করা হচ্ছে। এ অপশক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

শনিবার এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের নেতারা এসব কথা বলেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ১৪ দল এ ভার্চুয়াল আলোচনা সভার আয়োজন করে। 

১৪ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমুর সভাপতিত্বে এবং আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাসের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খান মেনন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু, জাতীয় পার্টির (জেপি) মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় ১৪ দল নেতা ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, ইসমাইল হোসেন, ডা. শাহাদাৎ হোসেন, জাকির হোসেন, মোসাহেদ আহমেদ প্রমুখ। 

সুনামগঞ্জের শাল্লায় সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনাকে অনভিপ্রেত আখ্যায়িত করে ১৪ দলের নেতারা বলেন, ওই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। এজন্য তারা সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। 

সভায় আমির হোসেন আমু বলেন, শাল্লার ঘটনা অনভিপ্রেত। বিশেষ করে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। তিনি বলেন, মোদি প্রতিবেশী রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে আসছেন। এটা ভিন্ন খাতে নেওয়ার সুযোগ নেই। যেহেতু সরকার তাকে আমন্ত্রণ করেছে, সরকারের উচিত এর বিরুদ্ধে অপশক্তির নানা অপতৎপরতা প্রতিহত করা। ১৫ আগস্ট, ২১ আগস্ট যারা ঘটিয়েছে, তারাই আবার সাম্প্রদায়িক উসকানি দিয়ে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক নষ্ট করার পরিবেশ তৈরি করছে বলেও অভিযোগ করেন আমু।

রাশেদ খান মেনন বলেন, বাংলার সংস্কৃতি ও ধারা থেকে আমরা পিছিয়ে গেছি। বঙ্গবন্ধুর নীতি আদর্শ অনুযায়ী সে ধারায় চলতে হবে। শেখ হাসিনা ছাড়া কাউকে সে ধারায় চলতে দেখি না। তিনি বলেন, শাল্লায় সাম্প্রদায়িকতার ঘটনাকে জলমহালের বিরোধ হিসাবে সামনে আনা হচ্ছে। আমি জানি না, অলিখিত হুকুম দেওয়া আছে কিনা যে, হেফাজতের নাম বলা যাবে না? হেফাজত নেতা মামুনুল হক ভারতের প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে বেড়াচ্ছেন। পুলিশ বলেছিল, প্রকাশ্যে সভা করতে পারবে না। অথচ তারা সারা দেশে নির্বিঘ্নে সভা-সমাবেশ ও বক্তৃতা করছে।

হাসানুল হক ইনু বলেন, আজকে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে যারা সমালোচনা করেন তাদের প্রতি করুণা ছাড়া আমি আর কিছুই করতে পারি না। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট সেই মহান নেতাকে হত্যা করে বাংলাদেশকে পাকিস্তান পন্থার দিকে নিয়ে যাওয়া হয়। মনে রাখতে হবে, খন্দকার মোশতাক ও জিয়াউর রহমানরা সচেতনভাবে বিশ্বাসঘাতকতার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে পাকিস্তান পন্থায়, সাম্প্রদায়িকতার পন্থায় নিয়ে গিয়েছিল। তাদেরই এক্সটেনশন হচ্ছে আজকের খালেদা-তারেক, বিএনপি-জামায়াত। 

তিনি আরও বলেন, জেনারেল জিয়াসহ কতিপয় ব্যক্তি মুক্তিযোদ্ধার লেবাস ছেড়ে দিয়ে রাজাকারের ঠিকাদারি নেয়। রাজাকারের ঠিকাদাররা বাংলাদেশকে রাজাকারদের ধারায় পরিচালিত করতে চায়। তিনি বলেন, আমরা যদি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের ধারায় দেশকে এগিয়ে নিতে চাই তাহলে রাজাকারের ধারাকে সম্পূর্ণরূপে পতন ও ধ্বংস করা ছাড়া কোনো উপায় নেই। তাদের পতন ঘটানো ছাড়া দেশ মুক্তিযুদ্ধের আলোর পথে উদ্ভাসিত হবে না। ৫০ বছরে অনেক অগ্রগতি হয়েছে, শেখ হাসিনা অনেক উন্নয়ন করেছেন। কিন্তু ঘরকাটা ইঁদুরের মতো লুটেরা ও দুর্নীতিবাজরা যে দাপট চালাচ্ছে তা আমাদের অর্জনকে ম্লান করে দিচ্ছে।

শেখ শহিদুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে নতুন মুক্তিযোদ্ধা হতে হবে। বঙ্গবন্ধু লড়াই করেছেন একটি স্বাধীন দেশ ও একটি জাতির মুক্তির লক্ষ্যে। দেশ স্বাধীন হলেও অর্থনৈতিক মুক্তির সংগ্রাম চলমান। এ সংগ্রামে অংশ নিয়ে নতুন প্রজন্মের মুক্তিযোদ্ধা হওয়ার সুযোগ আছে।

ইসমাইল হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কথা শুধু মুখে বললে হবে না, তার আদর্শের বাস্তবায়ন করতে হবে। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি রোধ করতে হবে। দুর্নীতিবাজদের তালিকা প্রকাশ করতে হবে এবং তাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে। শাল্লায় হামলার ঘটনায় দেশ-বিদেশে বাংলাদেশের অসাম্প্র্রদায়িক ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নের ষড়যন্ত্র বলে মনে করি।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড