1. khulna@nongor.news : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  2. news-desk@nongor.news : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  3. nisan@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  4. mdashik.ullah393@gmail.com : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  5. rabbi@nongor.news : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. sultanashaila75@gmail.com : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  7. sakia@nongor.news : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  8. ronia3874@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  9. sarowar@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
১৫ কোটি টাকাই জলে, নতুন করে হবে সেতু
বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৩৮ অপরাহ্ন

১৫ কোটি টাকাই জলে, নতুন করে হবে সেতু

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২ মার্চ, ২০২১
  • ৪৯৫ জন পড়েছেন

সুনামগঞ্জ-জগন্নাথপুর সড়কের কোন্দানালা খালের ওপর ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন একটি সেতু ধসে খালের মধ্যে পড়ে যাওয়ার ঘটনায় তোলপাড় চলছে। সেখানে নতুন করে আবার সেতু করা হবে।

সোমবার সড়ক ও জনপথ বিভাগের অতিরিক্ত প্রকৌশলী শিশির রায়ের নেতৃত্বে তিন সদস্যবিশিষ্ট কমিটি সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। রোববার বিকালে গার্ডার বসানোর সময় হাইড্রোলিক জ্যাক বিকল হয়ে সেতুটি ধসে যায়। তবে এলাকাবাসী নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ করেন।

মঙ্গলবার সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান যুগান্তরকে জানান, বুধবার থেকে ধসে যাওয়া সেতু অপসারণের কাজ শুরু করা হবে। অপসারণ কাজ শেষ হলে টিকাদারি প্রতিষ্ঠান এমএম বিল্ডার্স নতুন করে সেতুটির কাজ শুরু করবে।

তিনি জানান, গার্ডার বসানোর সময় হাইড্রোলিক জ্যাক বিকল হয়ে সেতুটি ধসে গেছে।

মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন এই ব্রিজের ৭০ ভাগ কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছিল। 

জানা যায়, ২০২০ সালে সুনামগঞ্জের পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ  সড়কে জরাজীর্ণ সেতুগুলো ভেঙে ১১০ কোটি টাকা ব্যয়ে সাতটি সেতু নির্মাণের কাজ শুরু করে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। কাজ বাস্তবায়নের দায়িত্ব পায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এমএম বিল্ডার্স।

সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান আরও জানান, নিম্নমানের সামগ্রী নয়, মেকানিক্যাল কারণে সেতুর গার্ডার ধসে গেছে। সেতুর মূল কাঠামোর কোনোরূপ ক্ষতি হয়নি। ধসে যাওয়া গার্ডারগুলো ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ঢাকার এমএম বিল্ডার্স তার নিজ খরচে অপসারণ করে নতুন করে গার্ডারগুলো বসিয়ে দেবে। তবে তাদের এ কাজের বিলও দেওয়া হয়নি। প্রাক্কলন অনুযায়ী তাদের সঠিকভাবে কাজ করতে হবে। নতুবা বিল পাবে না।

সূত্রঃ যুগান্তর

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড