সোনালী ব্যাংকে কমকর্তাদের অসদাচরণ; গ্রাহকেরা হয়রানিতে
  1. news-desk@nongor.news : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  2. niloy@nongor.news : Creative Niloy : Creative Niloy
  3. nisan@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  4. mdashik.ullah393@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. sultanashaila75@gmail.com : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  6. ronia3874@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  7. sarowar@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
সোনালী ব্যাংকে কমকর্তাদের অসদাচরণ; গ্রাহকেরা হয়রানিতে
শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০২:০২ অপরাহ্ন

সোনালী ব্যাংকে কমকর্তাদের অসদাচরণ; গ্রাহকেরা হয়রানিতে

ইসাহাক আলী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৮৪৪ জন পড়েছেন

সোনালী ব্যাংকের চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখায় গ্রাহকদের হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে। এখানকার বেশীর ভাগ কর্মকর্তায় গ্রাহকদের সাথে অসদাচরণ করছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

হয়রানির শিকার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক গ্রাহক বিরক্তির কন্ঠে দৈনিক নোঙরকে জানান, ভাবটা এমন যেন, গ্রাহকরা শুধু বিরক্ত করতে আসছেন ব্যাংকে। গ্রাহকরা না আসলে বসে খোসগল্প করে আরাম আয়েশের মধ্য দিয়ে দিনের সময়টা পার করতে পারলে ভালো হয়। কিন্তু উনারা নিজ দায়িত্ব ভুলে যান। তাদের মাসিক বেতন রাজস্ব থেকে হলেও সেটা কিন্তু এ জনসাধারণের অর্থ থেকে আসে সেটা মনে রাখা উচিত।

অন্যদিকে, বাড়িতে থেকে দীর্ঘদিন স্থানীয় ব্রাঞ্চে চাকুরী করার সুবাধে আরও বেশী উদ্ধৌত্য এসব কর্মকর্তারা বলে মনে করছেন ভূক্তভোগীরা।

এমনই ঘটনা সোমবার সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখায়। দৈনিক মানবকন্ঠের চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ও ‘দৈনিক চাঁপাই দর্পণ’ এর প্রকাশক ও সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম রঞ্জু চাঁপাইনবাবগঞ্জের সরকারী  অফিসের দেয়া সোনালী ব্যাংকের একটি চেক ‘সোনালী ব্যাংক, গুলশান শাখা, ঢাকা ব্রাঞ্চে ‘দৈনিক মানবকন্ঠ’ পত্রিকার এ্যাকাউন্টে জমা দেয়ার জন্য যায়। সেখানে অনলাইনে জমা দেয়ার জন্য ফরম পুরণ করে সংশ্লিষ্ট অফিসার এ কে এম তরিকুল আলম সিরাজী’র কাছে জমা দিতে গেলে তিনি চেকে সীল দিতে বলেন। সীল না থাকলে, বানিয়ে নিয়ে এসে চেকের পেছনে সীল দিয়ে জমা দেয়ার জন্য বলেন। আশরাফুল ইসলাম রঞ্জু বার বার অনুরোধ করলে তিনি গ্রহন করতে নারাজ হন। এমনকি অনেক অসংলগ্ন কথাবার্তা বলেন ওই অফিসার।

এনিয়ে শাখা ব্যবস্থাপকের সাথে দেখা বা কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তিনি চেম্বারে না থাকায় সম্ভব হয়নি। পরে কয়েকজন কর্মকর্তাদের নিকট ব্যবস্থাপকের ফোন বা মোবাইল নম্বর চাইলেও কেউই তা দেন নি। অবশ্য পরে ব্যবস্থাপকের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে কথা বলেন আশরাফুল ইসলাম রঞ্জু। জানা যায়, ব্যবস্থাপক বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টাও করেন।

জানা গেছে, সেই কর্মকর্তার নাম তরিকুল আলম সিরাজী। তার বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরেই এবং দীর্ঘদিন থেকেই তিনি এই শাখায় কর্মরত রয়েছেন। স্থানীয় হওয়ায় কিছু প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা সর্বদায় করে থাকেন তিনি।

অন্যদিকে, কিছুদিন পূর্বেই চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রেসক্লাবের সদস্য ও বালুগ্রাম কলেজের উপাধ্যক্ষ মাহবুবুর রহমান মিন্টু’র সাথেও সোনালী ব্যাংক চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখার একজন কর্মকর্তা অসদাচরণ করে। এনিয়ে নানা কথাবার্তা হয়। বিষয়টিকে কৌশলে চাপা দেন শাখা ব্যবস্থাপক।

এছাড়াও প্রায়ই সোনালী ব্যাংক চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখায় গ্রাহক হয়রানী এমনকি গ্রাহকদের উপর চড়াও এর ঘটনা ঘটেছে।

এব্যাপারে সোনালী ব্যাংক চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক মো. তারিক আমিন জানান, আসলে ভুল বুঝাবুঝির কারণে অনেক কথাবার্তা হয়ে যায়। অনেক সময়ই আমরা বেকায়দায় পড়েছি, সাংবাদিকদের আসল তথ্য নিশ্চিত হতে গিয়ে। আপনারা যারা প্রকৃত সাংবাদিক আছেন, তাদের বিষয়টি অবশ্যই আলাদা। হয়তো পরিচয় জানতে না পারা বা চিনতে না পেরে এরকম ঘটনা ঘটেছে। তিনি নানা কথা বলে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন।

এ ব্যাপারে হয়রানির শিকার আশরাফুল ইসলাম রঞ্জু এ ঘটনার সাথে জড়িত অফিসারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেছেন।

তিনি বলেন, দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি চাই, যেন আর কোন গ্রাহকের সাথে কোন অফিসার বা কর্তৃপক্ষ কোন অসদাচারণ করতে সাহস না পায় ভবিষ্যতে। তাহলেই প্রকৃত সেবা পাবে সাধারণ গ্রাহকগণ।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড