1. khulna@nongor.news : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা : মোঃ জিলহজ্জ হাওলাদার, খুলনা
  2. news-desk@nongor.news : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  3. nisan@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  4. mdashik.ullah393@gmail.com : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  5. rabbi@nongor.news : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  6. sultanashaila75@gmail.com : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  7. sakia@nongor.news : দৈনিক নোঙর ডেস্ক : দৈনিক নোঙর ডেস্ক
  8. ronia3874@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  9. sarowar@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
ফসলের খেতে কৃষক আঁকলেন শ্রদ্ধার মিনার
শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০১:২৮ অপরাহ্ন

ফসলের খেতে কৃষক আঁকলেন শ্রদ্ধার মিনার

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৬৩ জন পড়েছেন

অপরূপ প্রকৃতির দেশ বাংলাদেশ। লাল-সবুজের দেশে ফসলের মাঠে লালশাক আর পালংশাক রোপণ করে পরম মমতায় বাংলাদেশের শহীদ মিনার এঁকেছেন কুলিয়ারচরের কৃষক মো. রুমান আলী শাহ।

মিনারের নিচে লেখা অবিস্মরণীয় সেই বাণী― ‘মোদের গরব মোদের আশা, আ’মরি বাংলা ভাষা’। আছে বর্ণমালাও― অ আ ক খ। শহীদ মিনার, তার দুই পাশে শোভা পাচ্ছে দৃষ্টিনন্দন সব ফুল। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস সামনে রেখে রুমানের এই উদ্যোগ এলাকাবাসীর কাছে দারুণ প্রশংসিত হয়েছে।

লালশাক আর পালংশাকের চারাগুলো যত বড় হচ্ছে, ততই স্পষ্ট ও নান্দনিক হয়ে উঠছে শহীদ মিনার। ভাষাশহীদের শ্রদ্ধা জানাতেই ফসলের খেতে এমন শিল্পকর্ম এঁকেছেন বলে জানান কৃষক রুমান আলী শাহ। যে জমিতে পরম ভালোবাসায় ফসল ফলান, সেই জমির ফসলের মধ্যে এবার হৃদয়খচিত শ্রদ্ধার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন তিনি।

কৃষক মো. রুমান আলী শাহ কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার গোবরিয়া-আব্দুল্লাপুর ইউনিয়নের জাফরাবাদ গ্রামের কৃষক জিন্নাত আলী মিয়ার বড় ছেলে। এক ছেলে ও এক মেয়ের বাবা ৪৩ বছর বয়সী আবদুল রুমান কৃষিকাজের সঙ্গে জড়িত। দেড় একর আয়তনের খামারের মাঝখানে লম্বা ছয় শতক জমিতে কারও সহযোগিতা ছাড়াই এঁকেছেন দৃষ্টিনন্দন এ শিল্পকর্ম।

বিভিন্ন শাক দিয়ে এই শিল্পকর্ম আঁকেন কৃষক রুমান

কৃষক রুমান ঢাকা পোস্টকে জানান, মাতৃভাষা ও ভাষাশহীদের প্রতি অগাধ ভালোবাসা থেকেই ফসলের মাঠে ভালোবাসার প্রকাশ ঘটিয়েছি। আগে তিনি একই জায়গায় লালশাক ও পালংশাক দিয়ে জাতীয় পতাকা, মানচিত্র ও নৌকা এঁকে প্রশংসা কুড়িয়েছেন। তার এ কাজ দেখে নতুন প্রজন্মের শিশু ও শিক্ষার্থীরা সচেতন হোক। রক্তে অর্জিত মাতৃভাষার ও স্বাধীনতার প্রতি তাদের শ্রদ্ধা বাড়ুক এই প্রত্যাশাই কৃষক রুমানের।

স্থানীয় বাসিন্দা সাদেক হোসেন ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমাদের মধ্য থেকে দিন দিন দেশপ্রেম উঠে যাচ্ছে। কিন্তু আমাদের এলাকার ছেলে রুমান যা করেছে, তা দেশপ্রেমের অনন্য এক নজির। তরুণ প্রজন্ম এই কর্ম দেখে উজ্জীবিত হবে। রক্তে অর্জিত মাতৃভাষা প্রতি শ্রদ্ধাশীল হবে এই কামনাই করি।

কুলিয়ারচর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন ঢাকা পোস্টকে বলেন, কৃষক রুমান এর আগেও ফসলের মাঠে দেশপ্রেমের বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন তার লাশশাক ও পালংশাকে দিয়ে জাতীয় পতাকা ও মানচিত্র এঁকে। এবার ভাষাশহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে এঁকেছেন শহীদ মিনার। আর্থিক লাভবান না হলেও দূর-দূরান্ত থেকে লোকজন রুমানের শৈল্পিক কাজ দেখতে ইতোমধ্যেই আসতে শুরু করেছেন। তার কাজে উপজেলা কৃষি বিভাগ গর্বিত।

সূত্রঃ ঢাকা পোস্ট

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

টুইটারে আমরা

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড