পুলিশের চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে স্বামীকে ছিনিয়ে নিলেন স্ত্রী
  1. news-desk@nongor.news : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  2. niloy@nongor.news : Creative Niloy : Creative Niloy
  3. nisan@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  4. mdashik.ullah393@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. sultanashaila75@gmail.com : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  6. ronia3874@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  7. sarowar@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
পুলিশের চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে স্বামীকে ছিনিয়ে নিলেন স্ত্রী
শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৮:০৩ অপরাহ্ন

পুলিশের চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে স্বামীকে ছিনিয়ে নিলেন স্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৪৫ জন পড়েছেন

পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলায় পুলিশের চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে আসামি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় আসামির স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। এর আগে শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে উপজেলার চরকাজল ইউনিয়নের বড়শিবা গ্রামের পরোয়ানাভুক্ত আসামি কাশেম বেপারীকে (৪৫) গ্রেপ্তার করতে গেলে এ ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়েছেন। 

এ ঘটনায় কাশেম বেপারীর স্ত্রী হাসিনা বেগমসহ ১০ জনের নাম উল্লেখ এবং নয়জনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা করেন গলাচিপা থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. সুমন হাওলাদার। 

গলাচিপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমআর শওকত আনোয়ার ইসলাম বলেন, ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার একটি মামলার পরোয়ানাভুক্ত পলাতক আসামি কাশেম বেপারী। গলাচিপার চরকাজল ইউনিয়নের বড়শিবা গ্রামে অবস্থান নেন তিনি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার বিকেলে কাশেম বেপারীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। 

এ সময় কাশেমের বাড়ির নারী-পুরুষের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসেন। এরই মধ্যে কাশেমের স্ত্রী হাসিনা বেগম পুলিশের তিন সদস্যের চোখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেন। এ সুযোগে ১০-১২ জন মিলে পুলিশ সদস্যের পিটিয়ে আহত করে আসামি ছিনিয়ে নেন।

ওসি শওকত আনোয়ার ইসলাম বলেন, কাশেম বেপারী যাঁতি দিয়ে এএসআই সুমনের মাথায় আঘাত করেছেন। খবর পেয়ে আহত পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে গলাচিপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় মামলা করেছেন এএসআই সুমন। কাশেম বেপারীর স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। কাশেমকে গ্রেপ্তারে কাজ করছে পুলিশের একাধিক টিম। 

সূত্রঃ ঢাকা পোস্ট

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড