রোগী মৃত্যুর জেরে সদর হাসপাতালে স্বজনদের হামলা-ভাংচুর
  1. news-desk@nongor.news : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  2. niloy@nongor.news : Creative Niloy : Creative Niloy
  3. nisan@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  4. mdashik.ullah393@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. sultanashaila75@gmail.com : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  6. ronia3874@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  7. sarowar@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
রোগী মৃত্যুর জেরে সদর হাসপাতালে স্বজনদের হামলা-ভাংচুর
রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০২:৪৯ পূর্বাহ্ন

রোগী মৃত্যুর জেরে সদর হাসপাতালে স্বজনদের হামলা-ভাংচুর

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ১০ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৫০ জন পড়েছেন

রোগীকে যথাসময়ে চিকিৎসা না দেয়ার অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেছেন রোগীর স্বজনরা। বুধবার বিকাল ৫টার দিকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় জরুরি বিভাগে দুই ঘণ্টা চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম ব্যাহত হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জেলার বিজয়নগর উপজেলার সিঙ্গারবিল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বাবুল মিয়ার ছেলে আলভী এলাহী (১০) বুধবার আখাউড়া উপজেলার টানমান্দাইলে এসটি চেহলাম অনুষ্ঠানে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়।

পরে তাকে আহত অবস্থায় জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আলভীকে হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি করেন। এর কিছুক্ষণ পর আলভী মারা যায়।

এ ঘটনায় আলভীর স্বজনরা চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগ এনে জরুরি বিভাগে হামলা চালান। এ সময় তারা জরুরি বিভাগে থাকা কর্তব্যরত চিকিৎসকের কক্ষের কাচে ঘেরা বেষ্টনী ভেঙে ফেলেন।

জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক এবিএম মুছা চৌধুরী জানান, রোগীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে স্বজনদের জানানো হয়- রোগীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যেতে হবে। কিন্তু তখন রোগীর লিগ্যাল অভিভাবক উপস্থিত না থাকায় চিকিৎসা দিয়ে সার্জারি বিভাগে পাঠানো হয়। পরে সেখানেই তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় স্বজনরা উত্তেজিত হয়ে আমাদের ওপর হামলা করে।

তবে মৃত আলভীর স্বজনরা অভিযোগ করে বলেন, জরুরি বিভাগে নিয়ে আসার পর আলভীকে কোনো চিকিৎসা দেয়া হয়নি। দীর্ঘ সময় তাকে ফেলে রাখা হয়। চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ওসি মো. আবদুর রহিম জানান, হাসপাতালে ভাংচুরের খবর পেয়ে পুলিশ পাঠানো হয়। অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সূত্রঃ যুগান্তর

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড