বিপিএলে ২১ উইকেট নেওয়ার পরই আমাকে বাদ দেওয়া হয়: আমির
  1. news-desk@nongor.news : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  2. niloy@nongor.news : Creative Niloy : Creative Niloy
  3. nisan@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  4. mdashik.ullah393@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. sultanashaila75@gmail.com : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  6. ronia3874@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  7. sarowar@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
বিপিএলে ২১ উইকেট নেওয়ার পরই আমাকে বাদ দেওয়া হয়: আমির
বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০৩:১২ পূর্বাহ্ন

বিপিএলে ২১ উইকেট নেওয়ার পরই আমাকে বাদ দেওয়া হয়: আমির

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৭১ জন পড়েছেন

মাত্র ২৮ বছর বয়সেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পাকিস্তানের পেসার মোহাম্মদ আমির। 

তার এই আচমকা সিদ্ধান্তের পেছনে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) কয়েক কর্মকর্তাকে দায়ী করেন তিনি, যা নিয়ে পাকিস্তান ক্রিকেটে এখনও তোলপাড় চলছে।

এবার বাঁহাতি এই পেসার জানালেন, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ২১ উইকেট নেওয়ার পর থেকে পাক দলে জায়গা হয়নি তার। 

পাক কোচ মিসবাহর এক মন্তব্যের জবাবে বৃহস্পতিবার লাহোরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এ কথা বলেন মোহাম্মদ আমির। 

উল্লেখ্য, গত ১৯ ডিসেম্বরে শ্রীলংকা থেকে দেশে ফিরে অবসরের সিদ্ধান্তের পেছনে হেড কোচ মিসবাহ-উল হক এবং বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনিসকে দায়ী করে রীতিমতো ধুয়ে দেন।  

ভালো পারফরম্যান্সের পরও ব্যক্তিগত ইস্যুর কারণে নিউজিল্যান্ড সফরে তাকে স্কোয়াডে রাখা হয়নি বলে অভিযোগ আমিরের। 

নিউজিল্যান্ড সফর শেষে আমিরের করা এ অভিযোগ উড়িয়ে দেন মিসবাহ।  উল্টো পাক দলে আমিরের নিবেদন নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।

দল থেকে বাদ পড়ার জন্য আমির নিজেই দায়ী মন্তব্য করে মিসবাহ বলেন,  ব্যক্তিগত কোনো ইস্যু নেই। পারফরম্যান্সের কারণেই জাতীয় দলে জায়গা হারিয়েছেন আমির।  

মিসবাহর অভিযোগ, ৮৭-৮৮ মাইল গতিতে বোলিং করার সামর্থ্য থাকলেও আমির ৮১ মাইল গতিতে বোলিং করেছে। পারফরম্যান্সের কারণেই নির্বাচকরা সবাই ও অধিনায়ক মিলে আমিরকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।  

বৃহস্পতিবার মিসবাহর এমন যুক্তিকে ‘খোঁড়া’ অজুহাত বলে মন্তব্য করেন আমির।

আমির বলেন, ‘বিপিএলে ২১ উইকেট নেওয়ার পরের ম্যাচেই আমাকে বাদ দেওয়া হয়েছিল। এটা যদি ব্যক্তিগত ইস্যু না হয়, তা হলে কোনটি? হ্যাঁ, আমার গতি কিছুটা কমে গিয়েছিল। কারণ আমি পুরোপুরি ফিট ছিলাম না। অবসাদে ভুগছিলাম। কিন্তু লংকান প্রিমিয়ার লিগে উজ্জীবিত ছিলাম আমি। সেখানে ৯০ মাইল (১৪৫ কিলোমিটার) গতিতে বল করেছি।’

এর পর মিসবাহ ও ওয়াকারের কোচিং করানোর যোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেন আমির। তার মতে, পাক দলের এই দুই কোচ দুই রকম বার্তা দিয়ে খেলোয়াড়দের বিভ্রান্ত করছেন।

আমির বলেন, ‘এক কোচ বলেন, গতি কোনো ব্যাপার নয়, উইকেট নেওয়াই আসল ব্যাপার। আরেক কোচ বলেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে গতিটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা কার কথায় বিশ্বাস করব? আগে ঠিক করুন কী বলতে চান, তার পর আমিরকে শেখাতে আসবেন।’

প্রসঙ্গত, বিপিএলের সাত আসরের ইতিহাসে সেরা বোলিং ফিগার মোহাম্মদ আমিরের। পাকিস্তান সেরা এ পেসার গত আসরে রাজশাহী রয়েলসের বিপক্ষে খুলনা টাইগার্সের হয়ে ৪ ওভারে ১৭ রানের ইনিংসে সর্বোচ্চ ৬ উইকেট শিকার করেন। সে ম্যাচে আমিরের বোলিং নৈপুণ্যে ফাইনাল নিশ্চিত করে মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বাধীন খুলনা। সেবার ১৩ ম্যাচে ২১ উইকেট নেন তিনি।

সূত্রঃ যুগান্তর

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড