বদিকে ‘বাবা ডেকে’ বেকায়দায় যুবক
  1. news-desk@nongor.news : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  2. niloy@nongor.news : Creative Niloy : Creative Niloy
  3. nisan@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  4. mdashik.ullah393@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. sultanashaila75@gmail.com : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  6. ronia3874@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  7. sarowar@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
বদিকে ‘বাবা ডেকে’ বেকায়দায় যুবক
বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ০২:৪৪ পূর্বাহ্ন

বদিকে ‘বাবা ডেকে’ বেকায়দায় যুবক

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৬৩ জন পড়েছেন

উখিয়া-টেকনাফ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদিকে নিজের বাবা দাবি করে টেকনাফের এক যুবকের দায়ের করা মামলায় জারি করা সমনের চিঠি আদালতে ফেরত না আসায় শুনানি অনুষ্ঠিত হয়নি। এমনকি মামলার মূল আসামি বদিও আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) দুপুরে এ তথ্য জানান মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী কফিল উদ্দিন চৌধুরী।

গত ১৩ ডিসেম্বর টেকনাফ পৌরসভার কায়ুকখালী পাড়ার ২৭ বছর বয়স যুবক মোহাম্মদ ইসহাক বদিকে নিজের বাবা দাবি করে টেকনাফের সহকারী জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলায় বদি ছাড়াও মূল বিবাদী করা হয়েছে বদির চাচা টেকনাফের পৌর মেয়র হাজী মোহাম্মদ ইসলামকে। ওই দিন মামলাটি আমলে নিয়ে মূল বিবাদী আব্দুর রহমান বদিসহ বিবাদীদের ১৪ জানুয়ারি আদালতে উপস্থিত হয়ে জবানবন্দি দেওয়ার আদেশ দিয়েছিলেন বিচারক।

৩০ বছর আগে টেকনাফ পৌরসভার ইসলামাবাদ ধুমপাড়ার বাসিন্দা আবুল বশরের মেয়ে সুফিয়া খাতুনকে বদি বিয়ে করেন বলে মামলার বাদী দাবি করেন। তার দাবি, সেই সূত্রেই বদির প্রথম ছেলে তিনি।

মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী কফিল উদ্দিন চৌধুরী জানান, আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতের জারি করা সমন এখনো ফেরত আসেনি। তাই মামলার নির্ধারিত দিনে শুনানি অনুষ্ঠিত হয়নি। যেহেতু সমন ফেরত না আসায় আসামি সময় পেয়েছেন।

জারি করা সমন ফেরত আসার পর আদালতের পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানা যাবে বলে জানান বাদীপক্ষের এ আইনজীবী। অপরদিকে মামলার বাদী মোহাম্মদ ইসহাক জানান, মামলা দায়েরের পর তিনি নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন।

সূত্রঃ সময় নিউজ

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড