1. ishtiaq@nongor.news : ইশতিয়াক করিম : ইশতিয়াক করিম
  2. news-desk@nongor.news : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  3. niloy@nongor.news : Creative Niloy : Creative Niloy
  4. nisan@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. mdashik.ullah393@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  6. raihan@nongor.news : দেলোয়ার জাহান রায়হান : দেলোয়ার জাহান রায়হান
  7. sultanashaila75@gmail.com : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  8. sabbir@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  9. ronia3874@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  10. sarowar@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. srity@nongor.news : সবনাজ মোস্তারী স্মৃতি : সবনাজ মোস্তারী স্মৃতি
শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১, ০৯:৩৯ পূর্বাহ্ন

‘ট্রাম্পের টুইটার বন্ধ হলে খামেনিরটা খোলা কেন’

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৪৭ জন পড়েছেন

ইরানি এক সাংবাদিক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারের প্রধান জ্যাক ডসকিকে চিঠি লিখে জানতে চেয়েছেন মার্কিন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা হলেও ইরানের শীর্ষ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনিরটা কেন খোলা রাখা হয়েছে।

গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে হামলার উসকানি দেওয়ার অভিযোগে ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট স্থায়ীভাবে বন্ধ করা হয়। খবর জেরুজালেম পোস্টের।

নারী অধিকারকর্মী ও সাংবাদিক আলী নেজাদ সম্প্রতি টুইটারের সিইওর কাছে লেখা এক চিঠিতে বলেন, ট্রাম্পের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইরানি শীর্ষ নেতা নানা ধরনের উসকানিমূলক বিবৃতি দিয়ে যাচ্ছেন।

কখনও বলছেন, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের করোনার টিকা নেওয়া যাবে না। কারণ এগুলো সাধারণ মানুষের ওপর পরীক্ষা চালানোর জন্য প্রয়োগ করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের ভ্যাকসিন যদি করোনা প্রতিরোধে কর্যকরী হতো, তা হলে ওই দেশে করোনায় মৃত্যুর নতুন রেকর্ড হতো না।
      
এ ছাড়া ইউরোপের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এইচআইভি সংক্রমিত রক্ত ইরানে সরবরাহ করছে বলেও অভিযোগ করেন আরানের শীর্ষ ধর্মীয় নেতা।

আয়াতুল্লাহ খামেনির এসব বক্তব্যের জন্য তার টুইটার অ্যাকাউন্টও বন্ধ করার দাবি জানান ইরানের ওই অধিকারকর্মী।

সূত্রঃ যুগান্তর

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড