1. ishtiaq@nongor.news : ইশতিয়াক করিম : ইশতিয়াক করিম
  2. news-desk@nongor.news : বার্তা ডেস্ক : বার্তা ডেস্ক
  3. niloy@nongor.news : Creative Niloy : Creative Niloy
  4. nisan@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  5. mdashik.ullah393@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  6. raihan@nongor.news : দেলোয়ার জাহান রায়হান : দেলোয়ার জাহান রায়হান
  7. sultanashaila75@gmail.com : Shaila Sultana : Shaila Sultana
  8. sabbir@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  9. ronia3874@gmail.com : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  10. sarowar@nongor.news : অনলাইন ডেস্ক : অনলাইন ডেস্ক
  11. srity@nongor.news : সবনাজ মোস্তারী স্মৃতি : সবনাজ মোস্তারী স্মৃতি
রবিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১, ০৭:২৮ অপরাহ্ন

নামাজরত মাকে হত্যার দায়ে ছেলের মৃত্যুদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৬২ জন পড়েছেন

কুড়িগ্রামে নামাজরত অবস্থায় মাকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যার দায়ে ছেলে মন্তাজুল আলমকে (৩৬) মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত।  

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) দুপুর ১টার দিকে এ রায় দেন জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল মান্নান। এ সময় আসামি মন্তাজুল আলম আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

আদালত ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, মন্তাজুল আলমের প্রথম স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যাওয়ার পর মানসিকভাবে তিনি কিছুটা অসুস্থ হয়ে পড়ে। এ অবস্থায় মন্তাজুল দ্বিতীয় বিয়ে করার জন্য উদগ্রীব হয়ে উঠলে তার বাবা-মা তাতে অসম্মতি জানায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গত বছরের ২০ মার্চ দুপুর পৌনে ২টার দিকে ঘরের ভিতর জোহরের নামাজরত অবস্থায় মা মেহেরজান বেগমকে (৫৮) মন্তাজুল আলম কুড়াল দিয়ে কোপ দেয়। এতে ঘটনাস্থল তার মৃত্যু ঘটে। এ সময় চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ঘটনাস্থলে এসে মন্তাজুলকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই দিন বিকেলে বাবা সোলায়মান আলী (৬৪) বাদী হয়ে মন্তাজুল আলমকে আসামি করে রাজারহাট থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

সূত্র আরও জানায়, মামলার ১৯ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষে পাবলিক প্রসিকিউটর এসএম আব্রাহাম লিংকন এবং আসামি পক্ষে লিগ্যাল এইড নিয়োজিত আইনজীবী এটিএম এরশাদুল হক চৌধুরী শাহীন মামলাটি পরিচালনা করেন।

সূত্রঃ সময় নিউজ

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২০

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

সৌজন্যে : নোঙর মিডিয়া লিমিটেড