বাংলাদেশ-পাকিস্তান সিরিজের ভবিষ্যৎ কী?

31

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হিসেবে এপ্রিলে পাকিস্তানের বিপক্ষে ১টি টেস্ট ও ৩টি ওয়ানডে খেলার কথা বাংলাদেশের। তবে করোনা মহামারির কারণে স্থগিত হয়ে যায় সফরটি। এই সিরিজগুলোর ভবিষ্যৎ কী, আপাতত জানা নেই দুই বোর্ডেরই। এ বিষয়ে তাই বিসিবি তাকিয়ে আছে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসির দিকে। 

সম্প্রতি পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড-পিসিবি ২০২২ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এফটিপি অনুযায়ী তাদের সফরসূচি প্রকাশ করেছে। তবে সেখানে বাংলাদেশের বিপক্ষে বাকি থাকা টেস্টটির কথা উল্লেখ করা নেই। ফলে ম্যাচটির ভবিষ্যৎ ঝুলে পড়ল সুতোয়।

এ বিষয়ে ক্রিকবাজকে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেন, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের বিষয়ে কাজ করছে আইসিসি। তবে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। সে কারণে কোনো বোর্ডই এ বিষয়ে কথা বলছে না। আইসিসির আগামী মিটিংয়ে হয়তো এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে। ম্যাচগুলো কি রিশিডিউল করা হবে নাকি আয়োজনের সময়সীমা বাড়ানো হবে অথবা পয়েন্ট ভাগাভাগি করে দিয়ে দেয়া হবে? এসব নিয়ে ভাবছে আইসিসি।

নিরাপত্তার ইস্যুতে পাকিস্তানে ২ দফায় সফরে যেতে রাজি হয় বাংলাদেশ। প্রথম দফায় ২টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ ও ১টি টেস্ট খেলে টাইগাররা এবং হারে সব ক’টিতেই।তবে পিসিবির মিডিয়া বিভাগের পরিচালক সামি উল হাসান ক্রিকবাজকে জানিয়েছেন, টেস্ট এবং ওয়ানডের যেসব ম্যাচ সেগুলো ২০১৯-২০ মৌসুমের হওয়ায় আগামী ২ বছরের পরিকল্পনায় সেগুলোকে রাখা হয়নি।

তবে দুই বোর্ড সমঝোতায় পৌঁছলে পরবর্তীতে ম্যাচগুলো আয়োজন করা হবে।২০২১ সালের নভেম্বরে ২টি টেস্ট এবং ৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশে আসার কথা রয়েছে পাকিস্তানের।