পেনসিলভানিয়ায় ডেমোক্রেট প্রার্থী হওয়ার লড়াইয়ে জিতলেন নীনা আহমেদ

129
বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বিজ্ঞানী ড. নীনা আহমেদ

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের অডিটর জেনারেল পদের নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী হওয়ার লড়াইয়ে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বিজ্ঞানী ড. নীনা আহমেদ। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মাইকেল ল্যাম্বকে অন্তত ৮০ হাজার ভোটে হারিয়েছেন ফিলাডেলফিয়ার এ সাবেক মেয়র।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ড. নীনা আহমেদ এ পর্যন্ত ভোট পেয়েছেন ৩৪ শতাংশ, আর ল্যাম্ব পেয়েছেন ২৮ শতাংশ। বাকি প্রার্থীরা ১৫ শতাংশেরও কম ভোট পেয়েছেন। একটি জেলার ভোটের ফলাফল এখনও আসেনি।

ভোটে নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর নীনা আহমেদ এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আমি পরিবর্তনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম এবং একটি নতুন মুখ ও নতুন কণ্ঠ নির্বাচন করে ভোটাররা দুর্দান্ত সাড়া দিয়েছে। আমি কৃতজ্ঞ।’

ড. নীনা আহমেদ ঢাকা মেডিকেল কলেজে ছয় মাস পড়ার পর পাড়ি জমিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে। সেোনে ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভানিয়া থেকে মলিকিউলার বায়োলজিতে পিএইচডি করেছেন। উইলস আই হসপিটাল ও থমাস জেফারসন মেডিকেল কলেজে বিজ্ঞানী হিসেবেও কাজ করেছেন। রাজনীতিতে যোগ দিয়ে পরে ফিলাডেলফিয়ার ডেপুটি মেয়র নির্বাচত হন। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার উপদেষ্টা পরিষদেও জায়গা করে নিয়েছিলেন এ নারী।

আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেনের পক্ষে কাজ করবেন ড. নীনা আহমেদ। পেনিসিলভানিয়ার মানুষজন যে পরিবর্তন চায় তা তাদের উপহার দেয়ার প্রতিশ্রুত দিয়েছেন তিনি। অঙ্গরাজ্যটির অর্থনীতি, পুলিশি সেবা ও বিচার ব্যবস্থা পুনর্গঠনেও আশ্বাস দিয়েছেন এ নেতা।

ভোটে নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর নীনা আহমেদ এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আমি পরিবর্তনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম এবং একটি নতুন মুখ ও নতুন কণ্ঠ নির্বাচন করে ভোটাররা দুর্দান্ত সাড়া দিয়েছে। আমি কৃতজ্ঞ।’

ড. নীনা আহমেদ ঢাকা মেডিকেল কলেজে ছয় মাস পড়ার পর পাড়ি জমিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে। সেোনে ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভানিয়া থেকে মলিকিউলার বায়োলজিতে পিএইচডি করেছেন। উইলস আই হসপিটাল ও থমাস জেফারসন মেডিকেল কলেজে বিজ্ঞানী হিসেবেও কাজ করেছেন। রাজনীতিতে যোগ দিয়ে পরে ফিলাডেলফিয়ার ডেপুটি মেয়র নির্বাচত হন। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার উপদেষ্টা পরিষদেও জায়গা করে নিয়েছিলেন এ নারী।

আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেনের পক্ষে কাজ করবেন ড. নীনা আহমেদ। পেনিসিলভানিয়ার মানুষজন যে পরিবর্তন চায় তা তাদের উপহার দেয়ার প্রতিশ্রুত দিয়েছেন তিনি। অঙ্গরাজ্যটির অর্থনীতি, পুলিশি সেবা ও বিচার ব্যবস্থা পুনর্গঠনেও আশ্বাস দিয়েছেন এ নেতা।

সৌজন্যে : জাগো নিউজ ২৪