বন্ধুদের সঙ্গে মিলে প্রেমিকাকে ধর্ষণ

11309

হবিগঞ্জের সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার প্রেমিক শামীম আহমেদ মামুনকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) দুপুরে জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের বিচারক জিয়া উদ্দিন মাহমুদ এ নির্দেশ দেন।

চুনারুঘাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাজমুল হক, গত বুধবার (৮ জানুয়ারি) ওই কলেজছাত্রী বাদী হয়ে প্রেমিক মামুনসহ পাঁচজনকে আসামি করে ধর্ষণ মামলা করেন। পরে শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) ভোরে চুনারুঘাটের আত্মীয়ের বাড়ি থেকে মামুনকে গ্রেফতার করা হয়। বিকেলে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলায় ওই কলেজছাত্রী উল্লেখ করেন, মামলার প্রধান আসামি মামুনের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। গেল ৭ জানুয়ারি দুপুর ১টার দিকে তার মোবাইল নম্বরে কল করে মামুন তাকে বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার জন্য বলে। পরে কলেজ থেকে তিনি বের হয়ে মামুনের সঙ্গে অটোরিকশায় করে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে যান। সেখানে মামুন প্রথমে তাকে ধর্ষণ করেন। পরবর্তীতে ফজলুর, আলী ও জুনেদসহ অজ্ঞাতপরিচয় আরও দুইজন তাকে ধর্ষণ করে।

এ সময় অটোরিকশাচালক আক্কাছ জঙ্গলের বাইরে থেকে তাদের পাহারা দিচ্ছিলেন। গণধর্ষণের পর অসুস্থ অবস্থায় ওই ছাত্রীকে ফেলে রেখে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান অভিযুক্তরা। পরবর্তীতে তিনি অরণ্য থেকে বেড়িয়ে এসে চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাকে বাড়িতে পৌঁছে দেন।

সৌজন্যে : জাগো নিউজ ২৪